#মুম্বই: শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) ছেলে আরিয়ান খান (Aryan Khan) গত তিন সপ্তাহ ধরে হেফাজতে রয়েছেন (Mumbai Drug Case | Aryan Khan)। আজ, মঙ্গলবার বম্বে হাইকোর্টে শুনানি রয়েছে এই মামলার। মুম্বইয়ের প্রমোদতরী থেকে মাদক মামলায় গ্রেফতার আরিয়ান খান কি আজ জামিন পাবেন (Mumbai Drug Case | Aryan Khan)? আরিয়ানকে গ্রেফতারকারী কেন্দ্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থা এনসিবি-র কর্তা সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ ওঠার পর আপাতত সেই আশাতেই বুক বাঁধছে মন্নত (Mumbai Drug Case | Aryan Khan)।

তিনবার জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ার পর, বম্বে হাইকোর্টের দারস্থ হয়েছেন আরিয়ান খান (Aryan Khan)। হাইকোর্টে মঙ্গলবার এই মামলার প্রথম শুনানি। বম্বে হাইকোর্টে মানশিন্ডে নয়, আরিয়ানের হয়ে সওয়াল-জবাব করতে দেখা যাবে প্রাক্তন অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহাতগিকে। বিচারপতি নীতীন সাম্বরের সিঙ্গেল বেঞ্চের কাছে এদিন দুই পক্ষই নিজেদের সমর্থনে বক্তব্য পেশ করবে। কারাঞ্জওয়ালা অ্যান্ড কোং টিম মেম্বার বর্ষীয়ান আইনজীবী মুকুল রোহাতগি সোমবারই পৌঁছে গিয়েছেন মুম্বই। কথা বলেছেন আরিয়ানের দুই আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে, অমিত দেশাই ও আনন্দিনী ফার্নান্ডেজের সঙ্গে।

আরও পড়ুন: বার বার জামিন বাতিলে ভেঙে পড়েছেন শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান, জেলে কী করছেন জানেন?

মুম্বইয়ের ম্যাজিস্ট্রেট ও সেশন কোর্টে আরিয়ানের জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। এই দু’ক্ষেত্রেই আরিয়ানের হয়ে কেস লড়েছিলেন মানশিন্ডে। ৭ অক্টোবর অবধি এনসিবি কাস্টেডিতে থাকার পর বিচারবিভাগীয় হেফাজতে আরিয়ানকে পাঠানো হয় আর্থার রোড জেলে। তারপর থেকে সেখানেই আছে আরিয়ান। বিশেষ আদালত বলেছিল, হোয়াটস্যাপ চ্যাট থেকে প্রাথমিত দৃষ্টিতে প্রমাণ হয় যে, তিনি মাদক কারবারীদের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। আদালত আরবাজ মার্চেন্ট (২৬) ও মুনমুন ধমেচা (২৮)-এর জামিনের আর্জিও খারিজ করে দিয়েছিল। নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) গত ৩ অক্টোবর মুম্বই উপকূল থেকে এক প্রমোদ তরী থেকে মাদক বাজেয়াপ্ত হওয়ার ঘটনায় এই তিন সহ আরও কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছিল। আরিয়ান সহ ধৃত তিনজন আপাতত বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রয়েছেন। আরিয়ান ও মার্চেন্টকে আর্থার রোড জেলে রাখা হয়েছে। অন্যদিকে, ধমেচা বাইকুল্লার মহিলা জেলে বন্দি।

আরও পড়ুন: আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি তুলে ভাইরাল হন! জীবনের ঝুঁকির আশঙ্কা আছে বলে দাবি গোসাভির

আগের দু’বার শাহরুখ-পুত্রের জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছিল আদালত। যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছিল, জামিনে ছাড়া পেলে আরিয়ান তাঁর বিরুদ্ধে যাবতীয় তথ্য ও প্রমাণ লোপাটের চেষ্টা করতে পারেন। যে হেতু তিনি এক জন তারকা পুত্র, তাই এ বিষয়ে নিজের প্রভাব প্রতিপত্তিও প্রমাণ লোপাটে কাজে লাগাতে পারেন। এমনটাই তদন্তকারী সংস্থা এনসিবি দাবি করেছিল। তবে এখন যখন ঘটনার তদন্তকারী খোদ এনসিবির কর্তার বিরুদ্ধেই তদন্তে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তখন ২৩ বছরের আরিয়ানের মুক্তি নিয়ে আশার আলো দেখছেন অনেকেই।

আরও পড়ুন: আরিয়ানের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে টাকা! সাদা কাগজে সই করতে বলেছে এনসিবি, সাক্ষীর এমন অভিযোগে চাঞ্চল্য !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *